গল্প

শেফালী (নাম পরিবর্তিত) একজন বেশ্যা !!

শেফালীর স্বামী ভ্যান চালাতো। প্রচন্ড কাশি নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে ফিরে এল টিবি নিয়ে। আপাতত শয্যাশায়ী। চিকিৎসা এবং প্রতিদিনের সংসারের খরচে চটজলদি প্রচুর টাকার দরকার। শেফালী পড়াশনা জানে না। লোকের বাড়ি কাজ করে যা উপায় হবে তাতে তার সংসারই ঠিক মত চলবে না, অগত্যা তাকে ‘লাইনে’ নামতে হল।

শেফালী রোজ বিকেল ৪টের লোকাল ধরে কলকাতায় আসে, বাড়ি ফিরতে ফিরতে ভোর হয়ে যায়। ভালো স্কুলে স্বামীর চিকিৎসা শুরু হয়েছে। ছেলেটার পড়াশোনা ছাড়াতে হয় নি। সে নিয়মিত স্কুলে যায়।

শেফালির খাটনির রোজগারে তাদের সংসার এখন স্থির। সামাজিক ভয়ে প্রকাশ্যে সে তার পেশার স্বীকারোক্তি করতে পারে না। কিন্তু সে মনে মনে গর্বিত। তার স্বামী দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছে, মাঝে মাঝে ভ্যান নিয়েও বার হয় আবার। দুপুর বেলায় স্ত্রীকে খাবার বেড়ে দিতে দিতে সে বলে, খুব তাড়াতাড়ি সে পুরো দমে কাজ করতে পারবে এবং সংসারের দায়িত্ব নিয়ে নেবে।

প্রথম লাইনটায় আমি একটা মারাত্মক ভুল লিখেছি। আপনারা প্লীজ ঠিক করে নিন। শেফালী একজন আদর্শ স্ত্রী। তাকে ‘বেশ্যা’ বলা যায় না। অনেক ভাগ্য করলে লোকে শেফালীর মত বউ পায়।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *