সামাজিক

ইউটিউবে বাঙালী পরিচালকেরা কেন নিজেদের চ্যানেল খুলছেন না ?

সকাল সকাল কোনো কাজ ছিল না তাই YouTube এ খানিক ভ্রমণ সেরে এলাম। একটু খোঁজার চেষ্টা করলাম, কত জন বাঙালী পরিচালক নিজের নামে সেখানে চ্যানেল খুলেছে। অনেক নাম চোখে পড়ল। বেশীর ভাগই বা প্রায় সবই দেখলাম, মনের খেয়ালে একদিন খুলেছিল এবং কন্টিনিউ করে নি। দু – একজনের তিনশ সাবস্ক্রাইবার দেখলাম, বাকি সকলের ৫০-এর আশেপাশে। টোটাল ভিউতে দু একজন বাদে প্রায় সকলেই তিন হাজারের নিচে।

আমি এখানে কিন্তু ‘নিজের নামে চ্যানেল’ এমন চ্যানেলের কথাই বলছি। প্রোডাকশানের নামে চ্যানেলের কথা বলছি না বা যারা শর্ট ফিল্ম-এর কালেকশান করে তাদের কথা বলছি না।

অনেকেই আছে, নিজেরা চ্যানেল খোলে না। নিজেদের ছবিকে অন্যের কাছে নিলামে চড়িয়ে দেয়। সেটা তাদের ব্যাপার, দিতেই পারে। তাদের হয়ত সাহসের অভাব থাকে যে নিজের চ্যানেলে কত ভিউ হবে তার তো কোনো গ্যারান্টি নেই। বরং অলরেডি সাকসেসফুল এমন চ্যানেলের কাছেই নিরাপদে থাকি।

এই মনোভাবে আজ Pocket Films বা RDC Films এর আজ এত রমরমা। ইদানিং Purple Productionও বেশ ভালোরকম ভিউ পাচ্ছে। আর আছে Champion Detergent।

যাই হোক, যারা নিজের নামে চ্যানেল খুলে কিছু করার চেষ্টা করছে বা লড়ে যাচ্ছে তাদের সকলকে আমার তরফ থেকে নববর্ষের শুভেচ্ছা। সকলকে বলব নিরাশ না হয়ে আরো বেশী করে লেগে থেকে চ্যানেলটা কন্টিনিউ করতে।

সবসময় যে ফিল্মই আপলোড করতে হবে তার কোনো মানে নেই। আরো হাজার জিনিস আছে। শর্ট ভিডিও আছে। রিভিউ আছে। বিহাইন্ড শুটিং ইত্যাদি।

হয়ত কারো মনে আশা জাগাতে পারি, সেই নিরিখে আমার অভিজ্ঞতার কথা বলি। আমি ২০১৫ সালের ১লা জানুয়ারী থেকে আমার চ্যানেল শুরু করি। সেই মাসে চারটে এবং ফেব্রুয়ারীতে একটি ভিডিও আপলোড করি। তার পরের এগারো মাসে আমি প্রায় ২২ হাজার ভিউ এবং ৫০০ মত সাবস্ক্রাইবার পেয়েছিলাম। এই এগারো মাস আমি আর কোনো ভিডিও আপলোড করিনি।

নেক্সট আপলোড করি আমি ২০১৫ নভেম্বরে এসে। এবং তারপর থেকে আমি প্রতি মাসেই কিছু না কিছু ভিডিও আপলোড করে থাকি। খেয়াল রাখবেন সব ভিডিও ভিউ পায় না। সব ভিডিও থেকে টাকাও আসে না। কিন্তু চ্যানেলকে সচল রাখতে হলে অথবা ইউটিউবের নজরে নিজেকে ভালো ছাত্র প্রমাণ করতে হলে নিয়মিত আপলোড জরুরী।

আজ আমার চ্যানেলে ৪০টি ভিডিও আছে। এর মধ্যে সব ভিডিও সমান নয়। কিছু যেমন আছে খুবই অযোগ্য। কিছু আছে যেগুলি দেখে নন্দনে লোকে দাঁড়িয়ে হাততালি দেয়। কিছু ভিডিও আছে সস্তা মোবাইলে বিনে পয়সায় বানানো। কিছু ভিডিও আছে যেগুলি বানাতে তিন মাসের স্যালারী খরচ করতে হয়েছে।

আমি কিছু ভিডিও লোকের জন্যে বানাই। কিছু ভিডিও নিজের মনের ক্ষিদের জন্যে বানাই। কিছু ভিডিওতে জ্ঞান দিই, কিছুতে মস্তি দেওয়ার চেষ্টা করি। দর্শক যে যার মত করে নিজের পছন্দ খুঁজে নেবে সেটা তাদের উপর ছেড়ে দিই। অন্যের রুচীর উপর নিজের মতবাদ চাপিয়ে দিই না।

বাংলা সিনেমা বানিয়ে ইউটিউবে ৫০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০ লাখ ভিউজ এই কলকাতায় একমাত্র আমার আছে। সারা ইউটিউব খুঁজে হন্যে হয়ে গেলেও এরকম আর দ্বিতীয়টি পাবেন না।

যারা এখনও অন্যের চ্যানেলে নিজের ছবি চালিয়ে হেব্বী আনন্দে আছেন তারা জাগুন এবং নিজের একটা পরিচয় তোলার চেষ্টা করুন। সকলে সফল হয় না, সকলে বিফলও হয় না।

আজ আমার চ্যানেলের রানিং কন্ডিশান বোঝানোর জন্যে লাস্ট ৩ দিনের অ্যানালিটিক্স-এর স্ক্রীনশট দিচ্ছি। আশা করি এটা দেখে কিছু মানুষের ইচ্ছেটা আবার জাগবে। কত ভিউতে কত টাকা পাওয়া যায় সেটাও কিছুটা পরিস্কার হবে (সেটা যদিও অনেক কিছুর উপর নির্ভরশীল)।

যদি YouTube-এ চ্যানেল খোলা এবং টাকা রোজগারের ব্যাপারে কেউ বিস্তারিত জানতে চান বা শিখতে চান তাহলে আমাকে 9830144733 নম্বরে হোয়াটস্যাপ করতে পারেন। (অনুগ্রহ করে ফোন করবেন না)।

আজ পয়লা বৈশাখে সকলকে জানাই শুভ নববর্ষ ও আন্তরিক অভিনন্দন।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *