বিনোদন

কোন অভিনেতা ভালো, কেই বা খারাপ ?? কোনটা প্লাস পয়েন্ট, কোনটা খামতি ??

আবীর ও পরমব্রত ভালো অভিনেতা তবে ভ্যারাইটি কম। বিভিন্ন চরিত্রেও ডায়লগ ডেলিভারি, বডি ল্যাঙ্গুয়েজ খুব বেশি ডিফারেন্ট হয় না। পরম কিছুটা তবু চেঞ্জ আনতে পারে কিন্তু আবীর সব ছবিতেই প্রায় একইরকম।

জিৎ হিরো। এবং ভারতীয় সিনেমায় হিরোদের যতটা অভিনয় জানা দরকার। জিৎ তার থেকে বেশী জানে। ওর মধ্যে ভ্যারাইটিও আছে। বিশ্বাসযোগ্য ভাবে কমার্শিয়াল বা মাস মুভি করা খুবই কঠিন। জিৎ সেটা কনফিডেন্টলি পারে। বাংলাতে মাস মুভি যদি এখনও টিকে থাকে তবে এই একজনের জন্যেই। জিৎ যদি মাস মুভি করা ছেড়ে দেয় তবে ইন্ডস্ট্রির বহু মানুষ কাজ হারা হবে। বাংলা ছবিতে এই অ্যাকশনপ্যাক ধমাকার ধারাটাই লুপ্ত হয়ে যাবে। জিৎ সেটা এখনও একাই বাঁচিয়ে রেখেছে। বৃহত্তর দর্শকের কাছে পৌঁছতে হলে যে কোনো ইন্ডাস্ট্রিতে এই ধরণের সিনেমার দরকার আছে।

দেব ভালো নাচতে পারে। মানুষ হিসেবেও ভালো। প্রযোজক হিসেবে ভালো। নতুন ধরণের উদ্যোগ নিচ্ছে। তবে অভিনেতা হিসেবে ও একেবারেই বিচ্ছিরি। ঠিকমত বাংলাটাও বলতে শেখেনি এতদিনে। তবে দেবের সাহস আছে, অভিনয় পারে না, সেটা জেনেও বিভিন্ন অন্য ধারার সিনেমায় একের পর এক অভিনয় করে যাচ্ছে। বাংলা সিনেমা দেবকে এ কারণেই বহুদিন মনে রাখবে।

দেব যেভাবে নিজেকে প্রতিনিয়ত ভেঙেছে, নিজের কোয়ালিটিকে যত দ্রুত ইমপ্রুভ করেছে, বিভিন্ন সাহসী পদক্ষেপ নিয়েছে – দেব যে কোনো উঠতি নায়কের Inspiration বা Idol হতেই পারে। অভিনয় খারাপ করে মানে, মানুষটা খারাপ হয়ে যায় না। আমি মানুষটাকে খারাপ বলছি না।

ঋত্বিক দারুণ অভিনেতা। কিন্তু পরপর ওর যে কোনো তিনটে সিনেমা দেখুন (শব্দ বাদে) দেখবেন ভ্যারাইটি জিরো। চরিত্র যাই হোক না কেন একই রকম ডায়লগ ডেলিভারি, একই রকম এক্সপ্রেশন। উঠতি নবাগত পরিচালক এবং পুরোনো বন্ধুরা বাদে ওকে কেউ কাজও দেয় কি না কে জানে !! বহুদিন যাবৎ ওর কোনো নতুন সিনেমার খবর শুনি না।

অনির্বাণ তুখোড় অভিনেতা। বিশেষ করে শারীরিক ভঙ্গিমায়। প্রত্যেকটা চরিত্রের হাঁটা, তাকানো, জেশ্চার, বাচনভঙ্গী আলাদা আলাদা। তবে একটাই খামতি আমার মনে হয় সেটা হল, ওর গলার স্বর দারুণ হলেও ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে কন্ঠস্বরের বিশেষ পরিবর্তন করতে পারে না। বড্ড বেশি থিয়েট্রিকাল। গোয়েন্দা হোক, গ্রামের অশিক্ষিত চাচা হোক, প্রেমিক হোক, ভিলেন হোক – গলার ব্যারিটোন একই রকম।

অনির্বাণের থেকে যিশু অভিনেতা হিসেবে একটু কম শক্তিশালী। তবে নিজেকে বদল করার ক্ষেত্রে যিশু এই মুহূর্তে বাংলায় সবথেকে বেস্ট। ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রের প্রয়োজনে পর্দায় যিশু ভিন্ন ভিন্ন রূপে সামনে আসে। এটাই ওর শক্তি। অনির্বাণ যখন অভিনয় করে, লোকে বোঝে ওটা অনির্বাণই অভিনয় করছে। যিশুর অভিনয়ে লোকে চরিত্রটাকেই দেখে।

তবে ব্যক্তিগত ভাবে এদের সবার মধ্যে অনির্বাণ আমার বেশি প্রিয়। কিন্তু কোনো সিনেমায় আমাকে কোনো স্পেশাল চরিত্রে কোনো হিরোকে কাস্ট করতে হলে আমি যিশুকেই নেব।

এদের মধ্যে আপনার প্রিয় কে ?? নিচে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করতে পারেন। ইচ্ছে হলে লেখাটা ফেসবুকে হোয়াটস্যাপে শেয়ারও করতে পারেন।

বিঃদ্রঃ হে পাঠক, আপনি কার ফ্যান আমি জানি না। তবে এটা জানি, আপনার প্রিয় নায়ককে ভালো বললে আপনি বলবেন এই লেখাটা ভালো। আপনার প্রিয় নায়ককে খারাপ বললে আপনি বলবেন এ লেখাটা খারাপ। 🙂

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *